Home / অর্থনীতি / লাখাই জুড়ে চলছে ইরিবোরো চাষে ব্যপক প্রস্তুুতি ! লক্ষমাত্রা ১১২৭০হেক্টর॥

লাখাই জুড়ে চলছে ইরিবোরো চাষে ব্যপক প্রস্তুুতি ! লক্ষমাত্রা ১১২৭০হেক্টর॥


Print Friendly, PDF & Email

মহসিন সাদেক লাখাই থেকেঃ লাখাই্ উপজেলা জুড়ে পুরোদমে চলছে সারা বছরের খাদ্যঘাটতি মোকাবেলায় অন্যতম উৎস ইরিবোরো ধানের চাষ। হঠাৎ করে প্রচন্ড শীত আর কুয়াশার আবরন কে উপেক্ষাকরে ভোর রাত থেকে মাঠে ছড়িয়ে পরছে উপজেলার কৃষককুল। কালের আবর্তে গরুদিয়ে হাল চাষ হারিয়ে যাওয়ার ফলে কৃষকের কন্ঠে গরু তাড়ানোর হাক ডাক শুনা না গেলেও  ভোর থেকে রাত অবদি শুনা যায় কলের লাঙ্গলের উচ্চ শব্দতরঙ্গ।
১১২৭০ হেক্টর লক্ষমাত্রা নিয়ে শষ্য ভান্ডার খ্যাত লাখাই হাওর গুলিও সরব হয়ে উঠছে কৃষকের পদচারনা মুখর । উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে যানা যায়, এবছর লাখাইয়ে বোরো ধানের ২৬৬৫ হেক্টর হাইব্রিড জাতের , ৮৫৯৫ হেক্টর উপসী এবং ১০ হেক্টর স্থানীয় জাতের ধান আবাদ হচ্চে উপজেলার বিস্তৃর্ন হাওড়ে।ইতি মধ্যে ৬১০০ হেক্টর জমিতে বোরো চাষ সম্পন্ন হয়েছে।কৃষি অফিস সুত্রে আরও জানা যায়, পরিমিত পরিমানে ও যতা নিয়মে সার ও কীটনাশক প্রয়োগ করলে আশানুরুপ ফলন পাওয়া সম্ভব।এ ক্ষেত্রে কৃষকদের আরও সচেতনতা প্রয়োজন।এব্যপারে কৃষি কর্মকর্তা অমিত ভট্টচায্য জানান কাংকিত ফলন ফেতে গুটি ইউরিয়া সার প্রয়োগ করা বাঞ্চনীয়। জমি রোপনের পর পরই সুষম মাত্রায় ডি,এ,পি, এম,পিও জিপসাম  ও জিংকপার প্রয়োগ করতে হবে। জমির রোগ বালাই নিয়ন্ত্রনে রোপনের দিনই জমিতে পাসিং পদ্ধতি প্রয়োগ করতে হবে।আর পাসিং এর দুরত্ব হবে অন্তত ৪/৫ফুট ।কাংখিত ফলন পেতে জমিতে লাইনে ধান রোপন ও প্রতি  ১০ লাইন পর পর লাইন বাকাঁ রাখতে হবে।
শীতে কোড ইনজুরি থেকে জমিকে বাচাঁতে চত্রাক নাশক স্পেকারার পরার্মশ দেন কৃষি বিভাগ।
তবে অনুকুল আবহাওয়া ও জমির বিভিন্ন রকমের রোগ বালাই দেখা না দিলে বাম্পার ফলনের আশাবাদী কৃষক।

Share