Home / অর্থনীতি / ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে হবিগঞ্জ পৌরসভার দু’দিনব্যাপী করমেলা পৌরকর আদায় হয়েছে ২৪ লাখ ৮১ হাজার ৯শ ৯০ টাকা ॥

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে হবিগঞ্জ পৌরসভার দু’দিনব্যাপী করমেলা পৌরকর আদায় হয়েছে ২৪ লাখ ৮১ হাজার ৯শ ৯০ টাকা ॥


Print Friendly, PDF & Email

শেখ মোহাম্মদ তানভীর হোসেন (হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি) ॥ ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে হবিগঞ্জ পৌরসভার দুদিনব্যাপী করমেলা। দুদিনে পৌরকর আদায় হয়েছে ২৪ লাখ ৮১ হাজার ৯শ ৯০ টাকা। এতে করে গতবারের পৌরকর মেলার চেয়ে এবার ১৩ লাখ ৫ হাজার ২ শ ১২ টাকা বেশী আদায় হয়েছে। এবার করমেলায় ১ হাজার ৭শ ২৬ জন করদাতা পৌরকর পরিশোধ করেছেন যা গতবারের চেয়ে ৮ শ ২৮ জন বেশী। পৌরকর মেলার এ ফলাফলকে বড় সাফল্য হিসেবে দেখছেন সচেতন মহল।গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩ টায় পৌরভবন প্রাঙ্গনে করমেলার সমাপনী সভা অনুষ্ঠিত হয়। হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব জি, কে গউছের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জয়দেব কুমার ভদ্র বলেন কর আদায় স্বাভাবিকভাবেই একটি জটিল প্রক্রিয়া। হবিগঞ্জ পৌরসভা করমেলার মাধ্যমে করআদায় প্রক্রিয়াকে সহজ করে দিয়েছে। জয়দেব কুমার ভদ্র আরো বলেন আমরা পরিবারের সদস্য হিসেবে নিজের পরিবারে যেভাবে দায়িত্ব পালন করি, ঠিক তেমনি এ শহরকেও নিজের পরিবারের মতো মনে করে দায়িত্ব পালন করতে হবে। তিনি বলেন যে যার অবস্থানে থেকে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করলে এ শহরকে আমরা সুন্দর করে গড়ে তোলতে পারবো। তিনি পৌরকরমেলাসহ নানা কর্মসুচী পালনের জন্য মেয়র আলহাজ্ব জি, কে গউছসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। মেয়র আলহাজ্ব জি, কে গউছ বলেন হবিগঞ্জ পৌরসভা স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার ভিত্তিতে নাগরিকদের করের টাকার সদ্বব্যবহার করে বলেই কর পরিশোধে তাদের মধ্যে উৎসাহ বিরাজ করে। মেয়র বলেন হবিগঞ্জ পৌরসভা নিয়মিত নাগরিক সেবার পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের সংবর্ধনা, হজ্ব প্রশিক্ষন, বৈশাখী মেলা, অমর একুশে বইমেলা, কন্যাদান, সুন্নতে খৎনা, ইফতার মাহফিল, হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা, পিঠা উৎসব, খাদ্য মেলা, জনগনের মুখোমুখিসহ নানা জনহিতকর কর্মসুচী পালন করে আসছে। তিনি বলেন সকলের সহযোগিতা থাকলে ভবিষ্যতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে। মেয়র করমেলাকে সফল করে তোলার জন্য পৌরবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মঞ্জুর উদ্দিন শাহীন, দৈনিক খোয়াইয়ের সম্পাদক শামীম আহসান, আশরাফ জাহান কমপ্লেক্সের সত্ত্বাধিকারী আশরাফ উদ্দিন ও দৈনিক সমাচারের সম্পাদক গোলাম মোস্তফা রফিক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন করনিরূপন সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির আহবায়ক পৌর কাউন্সিলর মোঃ মাহবুবুল হক হেলাল। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌরকাউন্সিলর শেখ নুর হোসেন, মোঃ আলমগীর, সৈয়দা লাভলী সুলতানা, পৌরসভার সচিব নুর আজম শরীফসহ অন্যান্যরা। অনুষ্ঠানে আশরাফ জাহান কমপ্লেক্সের সত্ত্বাধিকারী আশরাফ উদ্দিন পৌরকর হিসেবে ১ লাখ ১০ হাজার ১ শ ৬০ টাকা , বিটিসিএল-এর পক্ষ হতে নিরঞ্জন চন্দ্র নাথ ৬৪ হাজার ৫ শ টাকা, জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ হতে সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মঞ্জুর উদ্দিন শাহীন ৩০ হাজার  ৫ শ টাকা পরিশোধ করেন। এছাড়াও সাংবাদিক শামীম আহসান, গোলাম মোস্তফা রফিক, ব্যবসায়ী আব্দুল আহাদ, বদর উদ্দিনসহ অন্যন্যরা পৌরকর পরিশোধ করে অতিথিদের কাছ হতে সম্মানানা সনদ গ্রহণ করেন। কর পরিশোধকারীদের সকলকে পৌরসভার পক্ষ হতে সম্মাননা সনদ, রজনীগন্ধা ফুল প্রদান করার পাশাপাশি মিষ্টিমুখ করানো হয়। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা দৃঢ়করনের লক্ষ্যে মেলায় কর আদায় করা হয় সরাসরি ব্যাংক বুথের মাধ্যমে। সোনালী ব্যাংক, মিউচ্যুয়াল ট্রাষ্ট ব্যাংক ও অগ্রণী ব্যাংকের পৃথক পৃথক ৩ টি বুথ ছিল মেলায়। সনদ বিতরন ও তথ্য সেবার জন্য ছিল ৫টি ষ্টল।

Share